সানাই আবার আলোচিত ও সমালোচিত

মিউজিক ভিডিও ‘দিয়াশলাই’ দিয়ে আবার আলোচনায় এসেছেন দেশের মিডিয়ায় বিভিন্ন সময় আলোচিত ও সমালোচিত সানাই মাহবুব। গতকাল বৃহস্পতিবার এএ মাল্টিমিডিয়ার ইউটিউব চ্যানেলে এই মিউজিক ভিডিও অবমুক্ত করা হয়। এরপর তা নিয়ে আলোচনা ও সমালোচনা শুরু হয়েছে। যদিও সানাই মাহবুব এই মিউজিক ভিডিওকে ‘অশ্লীল’ বলতে রাজি নন। তিনি বলেছেন, তাঁর নতুন মিউজিক ভিডিওটি পরিবারের সবাই একসঙ্গে বসে দেখতে পারবে। আর গানটি মূলত সবাইকে বিনোদন দেওয়ার জন্য তৈরি হয়েছে। চলচ্চিত্রে যেমন ‘আইটেম গান’ থাকে, ‘দিয়াশলাই’ তেমনই। তাই গানটি একটু ‘হট’ হতেই পারে। আর এই মিউজিক ভিডিও নিয়ে কোনো সমালোচনাকে তিনি পাত্তা দিচ্ছেন না। এর আগেও তাঁর বিভিন্ন কাজ নিয়ে সমালোচনা হয়।

‘দিয়াশলাই’ মিউজিক ভিডিওটি তৈরি হয়েছে ঈদুল ফিতর উপলক্ষে। তবে এবার জানানো হলো, বিশ্বকাপ ক্রিকেটসহ বিভিন্ন কারণে ঈদে তা মুক্তি দেওয়া সম্ভব হয়নি। গানটির কথা লিখেছেন সুদীপ কুমার দীপ, সুর ও সংগীত পরিচালনা করেছেন শামীম মাহমুদ। গানটিতে কণ্ঠ দিয়েছেন সাবরিনা সাবা।

ইউটিউবে ‘দিয়াশলাই’ মিউজিক ভিডিওর ট্রেলার এসেছে ২৯ জুন। আজ শুক্রবার দুপুর পর্যন্ত তা দেখা হয়েছে ৬ লাখ ৭ হাজার ৪৩৩ বার। কিন্তু মূল মিউজিক ভিডিওটি গতকাল মুক্তি পাওয়ার পর আজ দুপুর পর্যন্ত দেখা হয়েছে মাত্র ৮৯৬ বার। ট্রেলার দেখে মন্তব্য করেছেন ৪০৮ জন। আর তার মধ্যে প্রায় সবই আপত্তিকর মন্তব্য ও কঠিন সমালোচনা। মিউজিক ভিডিওটি দেখেও অনেকে সমালোচনা করছেন। এ ব্যাপারে সানাই মাহবুব বলেন, ‘আমি কমেন্ট পড়ি না। কমেন্ট পড়ার সময় কোথায়! কী ধরনের কমেন্ট আসবে, এ ব্যাপারে আমার ধারণা আছে। আসলে দর্শকদের কিছু সমস্যা আছে।’

‘দিয়াশলাই’ মিউজিক ভিডিওর গল্প প্রসঙ্গে সানাই মাহবুব বলেন, ‘এটি এক নারীর গল্প। তাকে গ্রাম থেকে ধরে এনে খারাপ লোকের কাছে বিক্রি করে দেওয়া হয়েছে। তারা মেয়েটিকে বিভিন্ন বারে নাচতে বাধ্য করে। যদি এই মিউজিক ভিডিও সফল হয়, তাহলে এর দ্বিতীয় কিস্তি আসবে। সেখানে গানে গানে মেয়েটি প্রতিশোধ নেবে। আসলে আমাকে মাথায় রেখেই গল্পটি তৈরি হয়েছে।’

জানালেন, এটি বড় বাজেটের কাজ। এখানে চলচ্চিত্রের খলনায়ক ডনসহ আরও কয়েকজন অভিনয়শিল্পী অংশ নিয়েছেন।

সানাই মাহবুব ছোটবেলা থেকে নাচ শিখেছেন। তিনি নাকি ১২ বছর ধরে ভরতনাট্যম শিখেছেন। এই শিক্ষা তাঁর অভিনয়কে অনেক সহজ করেছে।

এখন পর্যন্ত সানাই মাহবুবের কোনো ছবি মুক্তি পায়নি। তাঁর অভিনীত ‘ময়নার ইতিকথা’ ছাড়পত্রের জন্য শিগগিরই চলচ্চিত্র সেন্সর বোর্ডে জমা দেওয়ার সম্ভাবনা আছে। ছবিটি নাকি আরও অনেক আগেই মুক্তি দেওয়ার কথা ছিল, কিন্তু ছবির প্রযোজক আজম খান আর পরিচালক বাবু সিদ্দিকীর মধ্যে ঝামেলা হওয়ায় তা পিছিয়ে যায়। সানাই মাহবুব জানান, একই পরিচালকের অন্য ছবি ‘সুপ্ত আগুন-দ্য হিডেন ফায়ার’ নিয়ে তিনি ব্যস্ত। তা ছাড়া কয়েকটি মিউজিক ভিডিওতে কাজ করার ব্যাপারে আলোচনা হচ্ছে।

সানাই মাহবুব বলছেন, তাঁর কাছে নাকি প্রচুর সিনেমার প্রস্তাব আসে। শুধু নায়কের প্রেমিকা হয়ে নাচানাচি করা তাঁর কাজ না। আর গল্প পছন্দ হয়নি। এসব কারণে অনেক ছবিতে তাঁর কাজ করা হচ্ছে না।

এ বছর ফেব্রুয়ারি মাসে ক্ষমতাসীন দলের একজন সংসদ সদস্যের সঙ্গে তাঁর বাগদান হওয়ার কথা জানান সানাই মাহবুব। এখন পর্যন্ত তিনি সেই সংসদ সদস্যের নাম প্রকাশ করেননি। এরপর অনেকেই মন্তব্য করেছেন, নিজেকে আলোচনায় রাখার জন্য তিনি এমনটা বলেছেন। এ ব্যাপারে সানাই মাহবুব বলেন, ‘একটা মেয়ে কখনো তাঁর বিয়ে নিয়ে মিথ্যা বলবে না। আমাদের আগে থেকেই জানাশোনা ছিল। তিনি আমাকে বিয়ের প্রস্তাব দেন। আর বাবা-মা আমাকে নিয়ে খুবই অনিশ্চয়তার মধ্যে ছিলেন। তাই বাবা-মায়ের চাপে বাগদানে রাজি হয়ে যাই। কিন্তু আমার ক্যারিয়ার মাত্র শুরু হলো। সবকিছু গুছিয়ে বিয়ে করতে আরও দুই বছর তো লাগবেই। তখন সবাই সবকিছু জানতে পারবেন।’