মোদিকে নিয়ে এবার বাংলায় সিনেমা

কিছুদিন আগেই বলিউডে তৈরি হয়েছে তার বায়োপিক। যা নিয়ে কম শোরগোল হয়নি। এবার তাকে নিয়েই বক্স অফিসে ঝড় তুলতে চাইছে আরও এক চিত্র নির্মাতা। তবে এবার হিন্দি নয়, দেখা যাবে টলিউডের বাংলা ছবিতে। 

ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে কেন্দ্র করে তৈরি হচ্ছে বাংলা ছবি ‘প্রধানমন্ত্রী’। প্রযোজক শিলিগুড়ির বাসিন্দা। তবে রাজ্য রাজনীতিতে যাতে সরাসরি তা কোনো রকম বিতর্ক তৈরি না করে তাই প্রধানমন্ত্রীর চরিত্রের নাম নরেন্দ্র মোদি না রেখে রাখা হয়েছে অগ্নিশ্বর চট্টোপাধ্যায়।

ছবির প্রধান চরিত্রের নাম বদলে দেওয়া হলেও এটি আসলে নরেন্দ্র মোদির জীবনকে কেন্দ্র করেই তৈরি। তবে বায়োপিক বলতে রাজি নন প্রযোজক ও পরিচালক। কারণ নরেন্দ্র মোদির জীবনের উত্থান-পতন যেমন ধরা রয়েছে ছবিটিতে তেমনি ছবির আকর্ষণ বাড়ানোর জন্য বেশ কিছু কাল্পনিক ঘটনাবলী যোগ করা হয়েছে। যা প্রধানমন্ত্রীর জীবনে সত্যি কোনওদিন ঘটেনি।

তবে মোটামুটি প্রচলিত ঘটনাগুলির সবটাই ধরার চেষ্টা করেছেন প্রযোজক ও লেখক। প্রধানমন্ত্রীর সত্যিকারের জীবন নিয়ে একাধিক প্রচলিত ঘটনার মধ্যে নিজের মনের মাধুরী মিশিয়ে এগিয়েছে ছবির গল্প।

প্রধানমন্ত্রীর ভূমিকায় অভিনয় করছেন টলিউডের পরিচিত অভিনেতা কুণালজিৎ। প্রথমে ভিক্টর বন্দ্যোপাধ্যায় এবং পরে ধৃতিমান চট্টোপাধ্যায়কে চরিত্রটি অফার করা হয়। কিন্তু বিভিন্ন কারণে তারা চরিত্রটি করতে পারেনি।

উত্তরবঙ্গের পাশাপাশি মন্দরমণি-সহ একাধিক আউটডোরে শুট করা হয়েছে ছবির। তবে শুটিংয়ের সময় যাতে কোনও বিতর্ক তৈরি না হয় সে কারণে সিনেমাটি নরেন্দ্র মোদির জীবনের উপর তৈরি হচ্ছে কথাটি প্রকাশ করেননি কোথাও। এমনকি মেকআপ করা অবস্থায় বাইরে ঘুরে বেড়ানোর উপর নিষেধাজ্ঞা ছিল। শট নেওয়ার পরে ভ্যানিটি ভ্যানে লুকিয়ে পড়তেন কুণালজিৎবাবু।

আগামী ১২ জুলাই ছবিটি মুক্তি পাবে। শিলিগুড়িতে একাধিক সিনেমা হল মাল্টিপ্লেক্স এ ছবিটি মুক্তি পাওয়ার কথা। নির্বাচনের আগে চেষ্টা করলেও সেন্সর বোর্ডের ছাড়পত্র না মেলায় এতদিন অপেক্ষা করতে হল বলে জানিয়েছেন নির্মতারা।