বিয়ে করতে এসে বর জেলে

নীলফামারীর সৈয়দপুরে এবার বাল্যবিয়ে থেকে রক্ষা পেয়েছে দশম শ্রেণির এক শিক্ষার্থী। অপরদিকে বিয়ের আসর থেকে আটক বর রাব্বি ইসলাম সোহাগকে (২২) এক মাসের কারাদন্ড দিয়েছেন ভ্রাম্যমান আদালত। শনিবার (২৯ জুন) তাকে নীলফামারী কারাগারে পাঠানো হয়।

ভ্রাম্যমান আদালত সূত্রে জানা যায়, উপজেলার বোতলাগাড়ী ইউনিয়নের দক্ষিণ সোনাখুলী মুন্সিপাড়ার মো. ফজলুল হক ওরফে ইমদাদুলের ছেলে রাব্বির সাথে বিয়ে ঠিক হয় একই এলাকার ওই ছাত্রীর সাথে। শুক্রবার (২৮ জুন) বিয়ের সকল আয়োজন করা হয়। ওইদিন দিনের বেলা কনের বাড়িতে চলে আমন্ত্রিত অতিথিদের আপ্যায়ন।

সন্ধ্যার পর বর পক্ষের লোকজন হাজির হন কনের বাড়িতে। তাদের আপ্যায়নও করা হয়। এরপর বিয়ের আনুষ্ঠানিকতা শেষ করা প্রস্তুতি শুরু হয়। এসময় স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন ‘সুভা’র খবরে সেখানে উপস্থিত হন সৈয়দপুর উপজেলা সহকারি কমিশনার (ভূমি) পরিমল কুমার সরকার। তিনিসহ পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে বর ও কনেকে রেখে সেখান থেকে সটকে পড়েন উভয় পক্ষের লোকজন।

পরে বর ও কনেকে নিয়ে আসা হয় উপজেলা পরিষদ কার্যালয়ে। পরবর্তীতে ভ্রাম্যমান আদালত বাল্যবিয়ে করতে আসার দায়ে বর মো. রাব্বি ইসলাম এক মাসের বিনাশ্রম কারাদন্ড প্রদান করেন।

সহকারি কমিশনার (ভূমি) পরিমল কুমার সরকার বলেন, ‘মেয়েটির বয়স ১৮ বছর না হওয়া পর্যন্ত তার বিয়ে দিবেন না মর্মে অঙ্গীকারনামা নিয়ে মেয়েটিকে তার পরিবারের হাতে তুলে দেওয়া হয়েছে।’