বিমান বহরে দ্বিতীয় ড্রিমলাইনার যুক্ত হচ্ছে নভেম্বরের তৃতীয় সপ্তাহে

বিশ্বের সর্বাধুনিক বোয়িং-৭৮৭ ড্রিমলাইনার উড়োজাহাজ বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের বহরে যুক্ত হচ্ছে নভেম্বরের তৃতীয় সপ্তাহে। এর আগে গত ১৯ আগস্ট বিমানে বহরে প্রথম ড্রিমলাইনার যুক্ত হয়। বৃহস্পতিবার বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের মহা-ব্যবস্থাপক (জনসংযোগ) শাকিল মেরাজ এ তথ্য জানান।

জানা যায়, বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স ২০০৮ সালে মার্কিন বিমান নির্মাতা প্রতিষ্ঠান বোয়িং কোম্পানির সঙ্গে ১০টি নতুন বিমান ক্রয়ের জন্য ২ দশমিক ১ বিলিয়ন ইউএস ডলারের চুক্তি করে। ইতোমধ্যে বহরে যুক্ত হয়েছে ছয়টি বিমান। বাকি চারটি বিমান হলো বোয়িং ৭৮৭-৮ ড্রিমলাইনার। এর প্রথমটি গত ১৯ আগস্ট বিমান বহরে যুক্ত হয়। আর দ্বিতীয় ড্রিমলাইনার যুক্ত হচ্ছে নভেম্বরের তৃতীয় সপ্তাহে। আর বাকী দুটি আসবে আগামী বছর সেপ্টেম্বর মাসে।

শাকিল মেরাজ বলেন, আগামী নভেম্বর মাসের তৃতীয় সপ্তাহে বিশ্বের সর্বাধুনিক প্রযুক্তির ড্রিমলাইনার উড়োজাহাজ বিমানের বহরে যুক্ত হবে। বর্তমানে ড্রিমলাইনার উড়োজাহাজটি বোয়িং কোম্পানিতে কাজ চলতেছে।’

বিমান সূত্রে জানা গেছে, টানা ১৬ ঘণ্টা উড়তে সক্ষম এই ড্রীমলাইনার চালাতে অন্যান্য বিমানের তুলনায় ২০ শতাংশ কম জ্বালানি লাগবে। আকাশবীণায় আসন সংখ্যা ২৭১টি। এর মধ্যে বিজনেস ক্লাস ২৪টি আর ২৪৭টি ইকোনমি ক্লাস। প্রতিটি আসনের সামনে প্যানাসনিকের এলইডি এস-মনিটর রয়েছে। একইসঙ্গে ড্রীমলাইনারের ইন-ফ্লাইট এন্টারটেইনমেন্ট সিস্টেমে (আইএফই) থাকবে ১০০টির বেশি ক্ল্যাসিক থেকে ব্লকবাস্টার চলচ্চিত্র। অত্যাধুনিক বোয়িং ৭৮৭-৮ ড্রীমলাইনার সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে ৪৩ হাজার ফুট দিয়ে উড়ে যাওয়ার সময়ও ওয়াইফাই সুবিধা পাবেন যাত্রীরা। বিমানে ওয়াইফাইয়ের মাধ্যমে প্রত্যেক যাত্রী ১৫ মিনিটের জন্য বিনামূল্যে ১০ মেগাবাইট ইন্টারনেট ব্যবহার করতে পারবেন। এরপরও কোনও যাত্রী ইন্টারনেট ব্যবহার করতে হলে চার্জ দিতে হবে। এছাড়া মোবাইল ফোনে রোমিং সুবিধা থাকলে আকাশে উড্ডয়নের সময় কল করতে পারবেন যাত্রীরা।

এদিকে বিমানে প্রথম ড্রিমলাইনার যুক্ত হওয়ার পর বাণিজ্যিক ফ্লাইট পরিচালনা করা হচ্ছে ঢাকা-সিঙ্গাপুর ও ঢাকা-কুয়ালালামপুর রুটে। যার ভাড়া নির্ধারণ করা হয়েছে, ট্যাক্স ও চার্জ বাদে ঢাকা-সিঙ্গাপুর-ঢাকা রুটে ইকোনমি ক্লাসের ২০০ ইউ,এস ডলার এবং ঢাকা-কুয়ালালামপুর-ঢাকা রুটে ইকোনমি ক্লাসের ভাড়া ২৯০ মার্কিন ডলার।পরিবর্তন ডটকম